বটগাছে কিশোর, শোবার ঘরে কিশোরীর আত্মহত্যা

দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় একই রাতে ভিন্ন দুটি গ্রামে কিশোর-কিশোরীর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। অনিক চন্দ্র রায় (১৭) নামে কিশোর বটগাছে ও শোবার ঘরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে রেজিয়া আরফীন রিয়া (১৩) নামে কিশোরী। গতকাল রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটে।

রিয়ার বাবার নাম মো. রাজীব আরফীন। তিনি একজন পল্লী চিকিৎসক। বসবাস করেন উপজেলার আউলিয়া পুকুর ইউনিয়নের ছোট বাউল গ্রামের চেয়ারম্যান পাড়ায়। রিয়া চিরিরবন্দর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণি ছাত্রী ছিল। অনিক উপজেলার অমরপুর ইউনিয়নের রাজাপুর এলাকার বাসিন্দা। সে একটি ইটভাটায় কাজ করতো। তার বাবার নাম মানিক চন্দ্র রায়।

রিয়ার পরিবার জানায়, গতকাল রাতে নিজের শোবার ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে সে। অনিকের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যা ৭টার দিকে ইটভাটায় কাজ করতে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায় সে। রাতের কোনো এক সময় গ্রামের বটগাছে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয় সে।

কী কারণে এই কিশোর-কিশোরী আত্মহত্যা করেছে, দুই পরিবারের কোনো সদস্য তা বলতে পারেনি। চিরিরবন্দর থানা পুলিশ তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুমার সরকার বলেন, ‘পৃথক দুটি ঘটনায় লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুই পরিবার থেকে কারও অভিযোগ না থাকায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button