হেফাজতের বিরুদ্ধে মামলা সচল হচ্ছে

২০১৩ সালে হেফাজতে ইসলামের মহাসমাবেশ কেন্দ্র করে রাজধানীতে ব্যাপক তা-ব চলে। সরকারি স্থাপনা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, পুলিশ ফাঁড়ি ও গাড়িতে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ, হামলা, নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলে দিনভর নারকীয় পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়। এসব ঘটনায় সংগঠনটির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ঢাকাসহ সাত জেলায় ৮৩টি মামলা হয়। এর মধ্যে দীর্ঘ সাড়ে সাত বছরে মাত্র একটি মামলার নিষ্পত্তি হয়েছে। বাকিগুলোর মধ্যে ৬২টির কার্যক্রম এতদিন স্থবির ছিল। এর মধ্যে ৫৩টিই ঢাকার মামলা। সেগুলো এখন সচল করছে পুলিশ। মামলাগুলোর তদন্ত গুরুত্ব দিয়ে ফের শুরু করা হচ্ছে।

সম্প্রতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি ভাস্কর্য স্থাপনের বিরোধিতায় সরব হয়েছেন হেফাজতে ইসলামের নেতারা। এ নিয়ে কিছু দিন ধরে নানামুখী তর্কবিতর্ক চলছে। এর মধ্যেই ঢাকার মামলাগুলোর তদন্ত ফের শুরুর কথা জানা গেল। ১৩ দফা দাবি আদায়ে ধর্মভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম ২০১৩ সালের ৫ মে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে সমাবেশের ডাক দেয়। সমাবেশ কেন্দ্র করে ওই দিন দিনভর রাজধানীসহ নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম ও বাগেরহাটে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং পুলিশের সঙ্গে হেফাজত নেতাকর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সবচেয়ে বেশি সংঘর্ষ হয় রাজধানীতে। এর সূত্র ধরে হেফাজতে ইসলামের ব্যানারে রাজধানীর মতিঝিল, পল্টন ও আশপাশ এলাকায় তা-বলীলা চালানো হয়। ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের মাধ্যমে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় মতিঝিল এলাকা। পরে মধ্যরাতে চালানো অভিযানে শাপলা চত্বরে অবস্থানরত হেফাজতকর্মীদের হটিয়ে দেয় বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশের সমন্বয়ে গঠিত টিম।

এসব ঘটনায় রাজধানীসহ সাত জেলায় ৮৩টি মামলা হয়। এগুলোয় তিন হাজার ৪১৬ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৮৪ হাজার ৭৯৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। এগুলোর মধ্যে শুধু বাগেরহাটেই দায়ের হওয়া মামলাটি নিষ্পত্তি হয়েছে। মামলা তদন্তের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পুলিশ বা প্রসিকিউটররা হত্যাচেষ্টা, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের অভিযোগে আসামিদের দোষী প্রমাণ করতে না পারায় বাগেরহাটের মামলায় সবাইকে খালাস দেওয়া হয়। বাকি মামলার মধ্যে ১৮টির তদন্ত চলছে এবং দুটির অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ। এ ছাড়া স্থবির অবস্থায় রয়েছে বাকি ৬২টি মামলা। এসব মামলার বেশিরভাগই তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এই মামলাগুলোই এখন সচল করতে হচ্ছে।

 

এমন আরো সংবাদ

Check Also
Close
Back to top button