সেলিম প্রধানের থাইল্যান্ডে ৭ কোম্পানি

অনলাইন জুয়ার কারবারি সেলিম প্রধানের নামে থাইল্যান্ডে সাতটি কোম্পানি থাকার তথ্য-উপাত্ত পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ ছাড়া তার নামে যুক্তরাষ্ট্র ও থাইল্যান্ডে চারটি ব্যাংকে কয়েক কোটি টাকার অস্বাভাবিক লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। গতকাল দুদকের কমিশনার মোজাম্মেল হক খান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

কমিশনার মোজাম্মেল হক খান বলেন, থাইল্যান্ডে সেলিম প্রধানের মালিকানাধীন প্রধান গ্লোবাল ট্রেডিং, এশিয়া ইউনাইটেড এন্টারটেইনমেন্ট, তমা হোম পাতায়া কোম্পানি লিমিটেডসহ সাতটি কোম্পানির সন্ধান মিলেছে। সেলিম প্রধানের নামে ব্যাংকক ব্যাংক ও সায়েম কমার্শিয়াল ব্যাংকে ২০ কোটি টাকার আর্থিক লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের জেপি মর্গান ব্যাংকে সেলিম প্রধানের দুটি ব্যাংক হিসাবে আর্থিক লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। তদন্তের স্বার্থে সেলিম প্রধানের সব স্থাবর-অস্থাবর সম্পদ জব্দ করা হয়েছে। তার অর্ধশত ব্যাংক হিসাবও ফ্রিজ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সেলিম প্রধান লাস ভেগাসে ক্যাসিনো খেলতেন এবং কয়েক কোটি টাকা দিয়ে ক্যাসিনো চিপ লাস ভেগাস থেকে ক্রয় করেছিলেন এমন তথ্য দুদকের হাতে রয়েছে। একটি হিসাবে সেলিম প্রধান ৬১ কোটি টাকা দেশ থেকে পাচার করেছেন। তবে তা কোথায় পাচার করেছেন, তার উৎস সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সেলিম প্রধান মোট কত টাকা দেশ থেকে পাচার করেছেন, তা তদন্ত শেষ না হওয়ার আগে বলা যাচ্ছে না। টাকার উৎস এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

জানা গেছে, অবৈধ কারবারের মাধ্যমে ১২ কোটি ২৭ লাখ ৯৫ হাজার ৭৫৪ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে গত বছরের ২৭ অক্টোবর সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button