বসুন্ধরার বিটুমিন প্লান্ট দেখে সন্তুষ্ট সওজের প্রকৌশলীরা

বসুন্ধরা অয়েল অ্যান্ড গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শন করেছেন সড়ক ও জনপথের (সওজ) প্রকৌশলীরা। এটি বেসরকারিভাবে স্থাপিত দেশের প্রথম বিটুমিন প্লান্ট। বসুন্ধরার বিটুমিন প্লান্ট দেখে তারা সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। একইসঙ্গে বলেছেন, দেশের চাহিদা মিটিয়ে ভবিষ্যতে বিটুমিন রপ্তানি করতে পারবে বসুন্ধরা গ্রুপ।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার কেরাণীগঞ্জের পানগাঁওয়ে তারা এ বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শন করেন।

সওজের পরিদর্শক দলে ছিলেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের টেকনিক্যাল সার্ভিসেস উইংয়ের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন, বাংলাদেশ সড়ক গবেষণাগারের পরিচালক মোহাম্মদ আহসান হাবিব, রোড ডিজাইন অ্যান্ড স্টান্ডার্ড বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. বুলবুল হোসেন, মৃত্তিকা অনুসন্ধান বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহফুজার রহমান, কোয়ালিটি কন্ট্রোল অ্যান্ড ট্রেনিং শাখার মিস শামীমা, পরিবেশ বিভাগের অন্বেষা দাস হাসিসহ ১৩ সদস্য।

একইসঙ্গে বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শন করেন ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর এবং বিটুমিন গবেষক ড. নাজমুস সাকিব।

বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা সিমেন্টের চিফ মার্কেটিং অফিসার খন্দকার কিংশুক হোসেন, বসুন্ধরা গ্যাস অ্যান্ড অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের প্লান্ট প্রধান ইঞ্জিনিয়ার নাফিজ ইমতিয়াজ আলম, বসুন্ধরা গ্যাস অ্যান্ড অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার মো. ফরহাদ হোসেনসহ অনেকে।

বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শনের সময় বসুন্ধরা গ্রুপের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সওজের প্রকৌশলীদের মধ্যে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন।

মতবিনিময় সভায় বসুন্ধরা সিমেন্টের চিফ মার্কেটিং অফিসার খন্দকার কিংশুক হোসেন বলেন, ‘বাংলাদেশে বিটুমিনের চাহিদার ৯০ শতাংশই ব্যবহার করে বাংলাদেশ রোডস অ্যান্ড হাইওয়ে। এই প্রতিষ্ঠানটির চাহিদা মোতাবেক যদি আমরা উৎপাদনে সক্ষম হই, তাহলে বিটুমিনের মান যেমন ঠিক থাকবে, তেমনি বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হবে। পাশাপাশি আমাদের উৎপাদিত বিটুমিন দেশের টেকসই সড়ক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। ’

বসুন্ধরা গ্যাস অ্যান্ড অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের প্লান্ট প্রধান ইঞ্জিনিয়ার নাফিস ইমতিয়াজ আলম বলেন, ‘বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্টে শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষাসহ বিভিন্ন ঋতুতে ব্যবহার করা যায় এমন গ্রেডের বিশেষায়িত বিটুমিন তৈরি করা হবে। এসবিএস পলিমার বেজড বিটুমিন তৈরি করছি যা একেবারেই নতুন। এটা খুবই দীর্ঘস্থায়ী ও পানিরোধী। আমরা প্রথম ধাপেই ৩ লাখ মেট্রিক টন বিটুমিন উৎপাদন করব। ২০২১ সালের শেষ নাগাদ বার্ষিক ৯ লাখ মেট্রিক টন উৎপাদন করব। রপ্তানি করব ৪ লাখ মেট্রিক টন।’

বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শন শেষে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর এবং বিটুমিন গবেষক ড. নাজমুস সাকিব বলেন, ‘বিদেশ থেকে যে বিটুমিন আমদানি করা হয়, সেগুলোর কোয়ালিটি কন্ট্রোল সঠিকভাবে মানা হয় না। বসুন্ধরা গ্রুপ যে বিটুমিন প্লান্ট এবং বিটুমিন ল্যাব তৈরি করেছে, তাতে কোয়ালিটি কন্ট্রোল সঠিকভাবে রক্ষা করা যাবে বলে আমার বিশ্বাস। ’

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের টেকনিক্যাল সার্ভিসেস উইয়ের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. আব্দুল্লাহ আল মামুন বিটুমিন প্লান্ট পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাংলাদেশে যে ধরনের সড়ক রয়েছে, এসব সড়কের জন্য বিভিন্ন ধরনের বিটুমিন প্রয়োজন হয়। রোডস অ্যান্ড হাইওয়ে ডিপার্টমেন্টে আমরা যে ধরনের মডিফাইড বিটুমিন ব্যবহার করতে চাই, যে ধরনের বিটুমিন আমাদের দরকার, যতটুকু দরকার, তা উৎপাদনের সক্ষমতা বসুন্ধরা গ্রুপের রয়েছে, আমরা দেখতে পেয়েছি। যে প্রোডাকশন লাইন দেখলাম, তাতে বসুন্ধরা গ্রুপ দেশের চাহিদা পূরণ করে ভবিষ্যতে বিদেশেও বিটুমিন রপ্তানি করতে পারবে। ’

এ বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি কেরাণীগঞ্জের পানগাঁওয়ে বসুন্ধরা অয়েল অ্যান্ড গ্যাস কোম্পানি লিমিটেডের বিটুমিন প্লান্টের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী মোস্তফা কামাল এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদসহ সরকারি-বেসরকারি উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button