অবশেষে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত হচ্ছে সুন্দরবন

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দীর্ঘ সাত মাস বন্ধ থাকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা শর্তে আগামী ১লা নভেম্বর থেকে সুন্দরবনের পর্যটন স্পটগুলোতে উন্মুক্ত করে দেয়া হচ্ছে। ফলে দীর্ঘদিন পর সুন্দরবন কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের মধ্যে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরতে শুরু করেছে। মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পর মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বনবিভাগের প্রধান কার্যালয় থেকে সকল পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেয়ার বার্তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে বন বিভাগের খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট ও মোংলাসহ সকল দপ্তরে।

বনবিভাগের প্রধান বন সংরক্ষক মো. আমির হোসাইন চৌধুরী মঙ্গলবার রাতে এ সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,অবশ্যই স্বাস্থ্য বিধি মেনেই পর্যটকদের বনে ভ্রমণ করতে হবে। এজন্য বনবিভাগের বিভিন্ন কার্যালয়ে নিদের্শনা পাঠানো হয়েছে। এছাড়া করোনাকালে এক সাথে বেশি লোকজন নিয়ে ভ্রমণ করা যাবে না। মানতে হবে সামাজিক ও শারিরীক দূরত্বও। সেই সাথে অবশ্যই পর্যটন ব্যবসায়ীদেরকে সতর্কতাবস্থানে থাকতে হবে।

এর আগে চলতি বছরের ১৯ মার্চ করোনা বিস্তার রোধে সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এরপর থেকে বেকার হয়ে পড়ে এ শিল্পের সাথে জড়িত পর্যটন ব্যবসায়ী, মালিক ও শ্রমিক-কর্মচারীরা। তারা সুন্দরবন পর্যটনদের জন্য খুলে দেয়ার দাবীতে মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচীও পালন করে আসছিল। তারপর থেকে দীর্ঘ প্রায় ৭ মাসেরও অধিক সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর বনবিভাগ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে আগামী ১লা নভেম্বর থেকে সুন্দরবন ভ্রমণের জন্য উম্মুক্ত করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্তের সাথে সাথে পর্যটন কেন্দ্রগুলোর বিভিন্ন স্থাপনার উন্নয়ন, সংস্কার ও মেরামতে কাজ শুরুও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কারণ বিগত ঝড়-জলোচ্ছাসে বনের প্রধান আকর্ষণীস্থান করমজলসহ বিভিন্ন কেন্দ্রের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। একই সাথে প্রস্তুতিও নিতে শুরু করেছেন ট্যুরিজম ব্যবসায়ীরা। তারা তাদের নৌযানগুলোকে মেরামতসহ নানা কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।

এমন আরো সংবাদ

Check Also
Close
Back to top button