পোশাকশ্রমিককে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, রাজশাহীতে শিশু বলাৎকার

গাজীপুরের কাশিমপুরে কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক পোশাকশ্রমিককে গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ছাড়া রাজশাহীতে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক কিশোরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। লক্ষ্মীপুরের কমলগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গাইবান্ধায় এক তরুণের বিরুদ্ধে ১০ বছরের এক ছেলেশিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

গাজীপুরের কাশিমপুরে কারখানার থেকে কাজ শেষে রাতে বাসায় ফিরছিলেন এক পোশাকশ্রমিক। রাস্তা থেকে ওই পোশাককর্মীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিচার দাবি করে সকালে পোশাকশ্রমিকের সহকর্মীরা কাশিমপুর থানার সামনে বিক্ষোভ করেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আমিনুল ইসলাম, বায়েজিদ ও শাহাদত নামে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও কারখানার শ্রমিকরা জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সারদাগঞ্জ এলাকার একটি পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক গেল রাতে কারখানা ছুটির পর বাসায় ফিরছিলেন। পথে ৫-৬ যুবক তাকে রাস্তা থেকে তুলে নেয়। স্থানীয় স্কয়ার গেট এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তার পরিবারের লোকজনের কাছে ফোনে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আমিনুল, বায়েজিদ ও শাহাদতকে আটক করে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন কাশিমপুর থানার ওসি মাহবুব এ খুদা জানান, এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে। ভুক্তভোগী নারীশ্রমিককে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে পঞ্চম শ্রেণি পড়–য়া এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বুধবার দুপুরে উপজেলার মতিরহাট এলাকায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে আবদুল খালেকের ছেলে মো. দিদার (২৫) এবং তার চাচাতো ভাই আবদুল মজিদের ছেলে মো. আইউব (৩৫)।

পুলিশ জানায়, উপজেলার মতিরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে প্রতিবেশী দিদার বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে বুধবার দুপুরে এক আত্মীয়ের বসতঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে ঘটনাটি জানাজানি হলে দিদারের চাচাতো ভাই আইউব তা মীমাংসার চেষ্টা করেন। এ খবর পেয়ে বুধবার রাতে পুলিশ আইউবকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে নির্যাতনের শিকার ওই ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ দিদারকে গ্রেপ্তার করে। পরে ওই মামলায় আটক আইউবকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

হাজিরহাট পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. আলমগীর হোসেন জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করার পাশাপাশি নির্যাতনের শিকার ছাত্রীটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

রাজশাহীতে ধর্ষণের শিকার পাঁচ বছরের শিশু

রাজশাহী নগরীর খড়খড়ি এলাকায় ফাঁকা বাড়িতে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় গত বুধবার রাতে ১৫ বছরের এক কিশোরকে আসামি করে চন্দ্রিমা থানায় মামলা করেছে শিশুটির পরিবার। বুধবার সকালে শিশুটিকে বাসায় রেখে বাবা ভ্যান চালাতে বাইরে যান। অন্যদিকে শিশুটির মা বাইরে কাজে বের হলে ফাঁকা বাড়ি পেয়ে ওই কিশোর বাসায় ঢুকে শিশুটিকে ধর্ষণ করে। ঘটনার পরপরই ওই কিশোর গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। দুপুরে শিশুটির বাবা-মা বাড়িতে ফিরে শিশুকন্যাকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় দেখতে পায়। এরপর দ্রুত চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে শিশুটি ধর্ষণের শিকার হয়েছে জানিয়ে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, শিশুটির বেশ রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাকে রক্ত দেওয়া হয়েছে। ঘটনার পর হাসপাতালে আনতে কিছুটা দেরি হওয়ায় রক্ত দেওয়ার দরকার হয়। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুম মুনীর জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে ১০ বছরের এক শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শাকিল শেখ নামে এক তরুণের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বর্তমানে অসুস্থ শিশুটি গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গত বুধবার রাতে নির্যাতনের শিকার শিশুটির বাবা বাদী হয়ে সাদুল্লাপুর থানায় মামলা করেন। অভিযুক্ত যুবক উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের মাজেদ শেখের ছেলে। শিশুটির বাবা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে সুপারি কুড়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় শাকিল। এরপর একটি সুপারির বাগানে নিয়ে বলাৎকার করে। নির্যাতনের কারণে ছেলের মলদ্বার ফেটে রক্তক্ষরণ হয়। পরে ছেলেকে উদ্ধার করে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে অবস্থার অবনতি হলে তাকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসকরা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাদুল্লাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ রানা জানান, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। তবে ঘটনার পর থেকে শাকিল বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button