অজু করতে গিয়ে ‘ধর্ষণের’ শিকার মাদ্রাসাছাত্রী, পরে মিলল লাশ

অজু করতে গিয়ে ‘ধর্ষণের’ শিকার মাদ্রাসাছাত্রী, পরে মিলল লাশ

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ফজর নামাজ আদায়ের জন্য অজু করতে ওঠা এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা ঘটেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার গোপালদী পৌরসভার রামচন্দ্রদী এলাকা থেকে ওই মাদ্রাসাছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত ওই মাদ্রাসাছাত্রীর নাম তানজিনা আক্তার (১৫)। সে রামচন্দ্রদী এলাকার আফতাব উদ্দিন ওরফে আকতার হোসেনের মেয়ে। তানজিনা স্থানীয় একটি কওমি মাদ্রাসার ছাত্রী ছিল।

নিহতের বাবা আকতার হোসেন বলেন, ‘আজ বৃহস্পতিবার ভোরে ফজর নামাজ পড়তে আমরা সবাই ঘুম থেকে উঠি। একই সময় আমার মেয়েও নামাজ পড়তে ওঠে। আমরা নামাজের পর মেয়েকে না দেখে, খুঁজতে থাকি। এরপর সকালে বাড়ির পাশে একটি গর্তে তানজিনার লাশ দেখতে পাই।’

আড়াইহাজার থানার গোপালদী পুলিশৈ তদন্ত কেন্দ্রের (ফাঁড়ি) পরিদর্শক আজহার নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, নিহত তানজিনা আক্তার একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করত। ভোরে কে বা কারা তানজিনাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে তাদের বাড়ির পাশে একটি গর্তে লাশটি ফেলে দিয়ে যায়।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ফজর নামাজ পড়ার জন্য অজু করতে গিয়ে তানজিনা নিখোঁজ হয় বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন। তখন খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশের একটি গর্তে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় তানজিনার লাশটি পড়ে থাকতে দেখেন তারা। এখন পর্যন্ত আমরা শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছি। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের পর হত্যার আসল কারণ জানা যাবে।’

এমন আরো সংবাদ

Back to top button