২০ বছর ধরে তেলের ঘানি টানছেন ৭০ বছরের এই বৃদ্ধ!

গরু না থাকায় নিজেই ঘানি টানছেন বৃদ্ধ সইমুদ্দিন। ছবি : সংবাদ এখন

নীলফামারী প্রতিনিধি : টাকার অভাবে গরু কিনতে না পেরে ২০ বছর ধরে তেলের ঘানি টানছেন সইমুদ্দিন নামের ৭০ বছরের এক বৃদ্ধ। তিনি নীলফামারী ডিমলা উপজেলা ৭নং খালিশা চাপানী ইউনিয়নে সরকার পাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তিন ছেলে, তিন মেয়ে ও স্ত্রীসহ ৮ সদস্যের পরিবার নিয়ে সংসার চালাচ্ছেন সইমুদ্দিন। তার সংসারের আয়ের একমাত্র ভরসা তেলের ঘানি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সইমুদ্দিন বাজার থেকে সরিষা কিনে নিয়ে এসে নিজ বাড়িতে তেলের ঘানিতে ভোর ৩টা থেকে সন্ধা পর্যন্ত কোমড়ে ঘানির বাঁশ লাগিয়ে ঘুড়াতে থাকেন। সারাদিন ঘানি ঘুড়িয়ে যে তেলটুকু বের হয় তা বাজারে বিক্রি করেই তার সংসার চলে। তেল বিক্রির পুরো টাকা সংসার চালাতে খরচ হয়ে যায় বলে ঘানি টানার জন্য গরু কিনতে পারেন না।

বৃদ্ধ সইমুদ্দিন নিজের ঘানি টানার বিষয়ে বলেন, ‘দীর্ঘ ৩৫ বছর যাবৎ সরিষার তেলের ব্যবসা করে আসছি। ব্যবসার শুরুতে একটি গরু ছিল। সে গরুটিই এই ঘানি টানতো। ১৫ বছরের মাথায় গরুটি মারা যায়, সে থেকে গরু কেনার সামর্থ না থাকায় নিজেই ঘানি টানছি।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিদিন ভোর ৩টায় ১০ কেজি সরিষা ঘানিতে দিলে সন্ধার দিকে তেল মাড়াই শেষ হয়। এতে আমি যখন ক্লান্ত হয়ে পড়ি তখন আমার স্ত্রী ঘানি টানে। আমার এ কষ্টের পাশে যদি কোন ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ, প্রতিষ্ঠান, সমাজের কোনো বিত্তবান ব্যক্তি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতো তাহলে আমি হয়তোবা অভাবের সংসারকে পরিবর্তন করতে পারতাম।’

এমন আরো সংবাদ

Back to top button