বিপিএলে আগ্রহী আট দল, মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে বেক্সিমকো-বসুন্ধরা!

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরে অংশ নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে আটটি দল। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটের এই জমজমাট আসরে দল নিতে অনাগ্রহী দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ও বসুন্ধরা গ্রুপ। বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো মূলত কয়েক বছর মেয়াদি হলে দল নিতে আগ্রহ দেখিয়ে থাকে। কিন্তু এবারের বিপিএলে দলগুলো মাত্র এক বছরের জন্য অংশ নিতে পারবে, ঠিক সে কারণেই আগ্রহ দেখাচ্ছে না তারা। এমনটাই জানিয়েছেন ক্রিকেটে বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

বিপিএলের প্রথম আসর থেকেই ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো দীর্ঘ মেয়াদিভাবে অংশ নিতে চেয়েছিল। অন্তত দশ বছরের জন্য হলেও তারা দল গুছিয়ে নিয়ে পাইপলাইনে শক্তি বাড়ানোর চিন্তা-ভাবনার কথা জানিয়েছিল। কিন্তু বিসিবির পক্ষে দীর্ঘ মেয়াদিভাবে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোকে দায়িত্ব দেওয়া সম্ভব হয়নি। যার কারণে আগের আসরগুলো কোনো না কোনোভাবে জড়িত থাকলেও এবারের আসরের আগ্রহী নয় বেক্সিমকো ও বসুন্ধরার মতো প্রতিষ্ঠানগুলো।

বেক্সিমকোর ব্যবসার সঙ্গে জড়িত বিসিবির সভাপতি নিজেও। কেন এতো বড় প্রতিষ্ঠানটি অংশ নিতে চাচ্ছে না এ বিষয়ে জানতে চাইলে আজ সোমবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘এটা বলা মুশকিল (বেক্সিমকো প্রসঙ্গে)। আসলে বেক্সিমকো থাকবে কি থাকবে না এটা আমি এখনো জানি না। তবে অনেকেরই আগ্রহ আছে। আসলে হয় কি ছোট সংস্করণ তো এক বছর এক বছর করে অনেকেই আগ্রহী না। অনেকেই দীর্ঘ সময়ের জন্য আগ্রহী। তাহলে ওরা একটা প্ল্যান করে নামতে পারে।’ তবে বসুন্ধরা গ্রুপের আগ্রহ বা অনাগ্রহের বিষয়ে পরিষ্কার কিছু জানেন না তিনি।

২০১৯ সালে সর্বশেষ বিদেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে বিপিএল আয়োজন করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। সেই আসরে দলগুলো ছিল সরাসরি বোর্ডের নিয়ন্ত্রণে, ছিল না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। পরের বছর করোনাভাইরাসের প্রভাব থাকায় দেশি ক্রিকেটারদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টিকাপ নামে আরেকটি আসর করে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

তবে এবার আবারও ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং বিদেশি ক্রিকেটারদের নিয়েই ফিরছে বিপিএল। সম্ভাব্য তারিখ অনুযায়ী আগামী বছরের ২০ জানুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে এই আসর। দল সাবমিটের তারিখ ছিল ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। কেমন সাড়া মিলেছে সে প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘বিপিএলে প্রথম যে জিনিস হয়েছে, এবারের আসরে আটটা ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহ দেখিয়েছে, আমাকে আজকে যেটা জানানো হলো। এখন আমরা দেখব, তাদের সম্পর্কে জানব। এখনো ফাইনাল হয়নি।’

এবারের আসরেও দেশি ক্রিকেটারদের চেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পেতে যাচ্ছেন বিদেশি ক্রিকেটাররা। যা নিয়ে গত কয়েক আসরে আলোচনা-সমালোচনা হয়েছিল। এ বিষয়ে পাপন বলেন, ‘প্রথমে যখন বিপিএল নিয়ে কথা বলি, তখনই আমি প্রশ্নটা রেস করেছিলাম। বিদেশি খেলোয়াড়দের সঙ্গে আমাদের খেলোয়াড়দের বিশেষ করে ড্রাফটে যারা আছে, তাদের পার্থক্যটা খুব বেশি যেন না হয়। আমাদের প্লেয়াররা যেন তাদের প্রপারটাই পায়।’

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button