শ্রীপুরে সন্তানসহ ট্রেনের নিচে কাটা পড়ে মা নিহত

গাজীপুরের শ্রীপুর রেলস্টেশন সংলগ্ন কাটাপুল এলাকায় সন্তানসহ এক নারী ট্রেনের নিচে কাটা পড়েছেন। এতে মায়ের মৃত্যু হলেও তার কন্যাসন্তান গুরুতর আহত হয়েছে। আজ বুধবার সকাল ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন শ্রীপুর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার হারুণ অর রশিদ। তাৎক্ষণিকভাবে আহত ও নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

তিনি জানান, সকাল সোয়া সাতটার দিকে ময়মনসিংহ হয়ে জাজিরাগামী ৪৯ আপ ট্রেনটি শ্রীপুর স্টেশন ছেড়ে যায়। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে স্টেশন চত্ত্বর থেকে প্রায় এক কিলোমিটার উত্তরে কাটাপুল এলাকায় ট্রেনের নিচে সন্তানসহ এক নারী কাটা পড়ার খবর পান। এতে ওই নারী ঘটনাস্থলেই নিহত ও তার কন্যা সন্তানের হাতে গুরুতর আহত হয়। শিশুটিকে উদ্ধার করে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়েছে। তবে এটা আত্মহত্যা নাকি দুর্ঘটনা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্তারিত জেনে রেলওয়ে পুলিশকে জানানো হয়েছে।

এদিকে, স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী আমজাদ হোসেন জানান, তিনি দূর থেকে দেখতে পান এক নারী বাচ্চা কোলে নিয়ে রেললাইন দিয়ে হেঁটে উত্তরদিকে আসছিল। ট্রেনটি শ্রীপুর স্টেশনের অনুমান এক কিলোমিটার উত্তরে কাটাপুল নামক ব্রিজের কাছাকাছি পৌছার আগেই হঠাৎ ওই নারী বাচ্চা কোলে নিয়ে রেললাইনের উপর বসে পড়ে। ট্রেনে কাটাপড়ে ওই নারীর দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। ট্রেনের ধাক্কায় বাচ্চাটি ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয়। স্থানীয় সিরুমিয়ার ছেলে আবু হানিফাসহ কয়েক যুবক বাচ্চাটিকে উদ্ধার করে শ্রীপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ট্রেনে কাটাপড়ে নারীর মৃত্যুর খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। স্থানীয়রা জানায়, ওই নারী আত্মহত্যা করতেই বাচ্চা কোলে নিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়েছিল।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডা. মাহমুদা খাতুন বলেন, বাচ্চাটির নাম পরিচয় জানা যায়নি। তার বাম হাত থেকে পাঁজর পর্যন্ত থেঁতলে গেছে। অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় শিশুটিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জরুরী ভিত্তিতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button