এবার হজের খুতবা দেবেন শায়খ আবদুল আজিজ বালিলা

আর কদিন পরই অনুষ্ঠিত হবে মুসলিম উম্মাহর সবচেয়ে বড় ধর্মীয় আয়োজন হজ। সৌদি আরবের মক্কায় হজ মৌসুমে যেখানে ভিন্ন ভিন্ন দেশের লাখ লাখ লোকের পদচারণা থাকতো, তা গত দুই বছর ধরে হচ্ছে না। মরণব্যাধী করোনাভাইরাসের কারণে হজে যেতে পারছেন না প্রত্যাশীরা। এর মাঝেও সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ হজের আয়োজন করছে। জিলহজ মাসের নবম দিন আরাফার দিন অনুষ্ঠিত হবে হজ, যেখানে এ বছর খুতবা দেবেন মক্কার মসজিদুল হারামের ইমাম ও খতিব শায়খ ড. বান্দার বিন আবদুল আজিজ বালিলা।

হজের দিন ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা আরাফা প্রাঙ্গণের পর্বত ও এর আশপাশে অবস্থান করেন। আরাফাতের মসজিদে নামিরা থেকে একজন ইমাম সমবেত মুসলিমদের উদ্দেশে খুতবা দেন। খুতবা প্রদানের জন্য প্রতি বছর মক্কার মসজিদুল হারাম বা মদিনার মসজিদে নববীর কোনো একজন ইমামকে নির্বাচন করা হয়। এই বছর মক্কার মসজিদুল হারামের ইমাম ও খতিব শায়খ ড. বান্দার বিন আবদুল আজিজ বালিলা আরাফার প্রাঙ্গণে খুতবা প্রদান করবেন।

আরাফার দিনের খুতবায় মুসলিমদের উদ্দেশে গুরুত্বপূর্ণ কথা বলা হয়। আরাফার দিন খুতবা দেওয়া সুন্নত। ওই দিন জোহর ও আসরের নামাজ পড়ার আগে খুতবা শুরু করা হয়। জোহরের সময় জোহর ও আসরের নামাজ একসঙ্গে আদায় করা হয়।

এরপর মাগরিব ও এশার নামাজ একসঙ্গে এশার সময় আদায় করা হয়। নামাজ আগে ও পরে আদায়ের বিধান শুধু এই দিনের জন্য প্রযোজ্য।

আরাফার দিন সূর্যাস্ত পর্যন্ত হাজিরা আরাফা প্রাঙ্গণে অবস্থান করেন। এরপর তারা মুজদালিফার দিকে চলে যান। আরাফা প্রাঙ্গণে শুভ্র কাপড় পরা হাজিদের অপূর্ব দৃশ্য সবার নজর কাড়ে। রেডিও, টিভি, ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে আরাফার খুতবা সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

উল্লেখ্য, আগামী ১৯ জুলাই সোমবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। পরের দিন মঙ্গলবার ঈদুল আজহা পালন করবে সৌদি আরববাসী।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button