ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে থাপ্পড় মারা সেই ব্যক্তির ৪ মাসের কারাদণ্ড

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁকে চড় মারার অভিযোগে আটক ব্যক্তিকে চার মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার আদালত অভিযুক্ত দামিয়েন তেরেলের বিরুদ্ধে ১৮ মাসের সাজা ঘোষণা করেন।

পরে ১৪ মাসের সাজা স্থগিত করা হয়েছে। ফলে তাকে চার মাস কারাগারে থাকতে হবে। খবর আল জাজিরার।

গত মঙ্গলবার ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলের দ্রোমে এলাকা পরিদর্শনে যান মাখোঁ। এ সময় তিনি কোভিড-১৯-এর ধাক্কা কাটিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করা ফ্রান্সের একদল বাসিন্দার সঙ্গে কুশল বিনিময় করতে যান। ওই সময় দর্শন প্রত্যাশীদের কাতারে দাঁড়িয়ে থাকা ২৮ বছর বয়সী দামিয়েন মাখোঁর গালে সপাটে চড় মারেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ঘটনার একটি ভিডিওতে দেখা যায়, কোমরসমান উচ্চতার ব্যারিকেডের এক পাশে সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে থাকা শুভানুধ্যায়ীদের দিকে এগিয়ে যান মাখোঁ। সবুজ রঙের টি-শার্ট, সানগ্লাস ও মাস্ক পরা একজনের দিকে হাত বাড়িয়ে দেন তিনি। এ সময় লোকটিকে বলতে শোনা যায়, ‘মাখোঁনিয়ার পতন হোক’। এরপরই ডান হাত দিয়ে মুখোমুখি দাঁড়ানো মাখোঁর মুখে সজোরে চড় মারেন তিনি। ভিডিওতে সবুজ টি-শার্ট পরা ওই ব্যক্তিই দামিয়েন।

তাৎক্ষণিকভাবে ফরাসি প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তায় নিয়োজিতদের দুজন এগিয়ে গিয়ে দামিয়েনকে মাটিতে ফেলে দেন। আরেকজন মাখোঁকে সরিয়ে নেন। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই মাখোঁকে আবার সেখানে এসে ব্যারিকেডের অপর পাশের কারও সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায়। ওই ঘটনায় আটক করা হয় দামিয়েনসহ মোট দুজনকে।

সরকারি কৌঁসুলিরা আদালতে দামিয়েনের বিরুদ্ধে ‘সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃতভাবে সহিংস কাজ’ সংঘটনের অভিযোগ আনেন। তারা বলেন, এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এর দায়ে দামিয়েনের সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদণ্ড ও ৪৫ হাজার ইউরো জরিমানা হতে পারত। অভিযুক্ত দামিয়েন ডানপন্থী রাজনীতির সমর্থক ও ফ্রান্সের ইয়েলো-ভেস্ট আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

 

এমন আরো সংবাদ

Check Also
Close
Back to top button