‘কুপ্রস্তাবে’ রাজি না হওয়ায় প্রবাসী নারীর শ্লীলতাহানি!

কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রবাসী এক নারীকে শ্লীলতাহানি ও নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ওই নারী বাদী হয়ে ত্রিশাল থানা ও ইউএনও বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার বইলর ইউনিয়েনের কাজির শিমলা বাজারে ঘটনাটি ঘটেছে।

অভিযোগ সূত্র জানা যায়, ক্রিশাল উপজেলার এক নারী ২০২০ সালে সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরত এসে বাবার বাড়িতে বসবাস করছিলেন। প্রায় ৫ মাস আগে ওই নারীর মোবাইলে ফোন দিয়ে নানা ধরনের অশালীন কথার মাধ্যমে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন উপজেলার কাজীর শিমলা গ্রামের দেওয়ানিয়া বাড়ির বখাটে সুজন মিয়া (৩৬)। তিনি কাজীর শিমলা বাজারের টিন ও সিমেন্ট ব্যবসায়ী। কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় প্রাবসী ওই নারীকে প্রতিনিয়তই বিভিন্ন লোকের মাধ্যমে নজরদারি রাখতেন সুজন। প্রয়োজনের তাগিদে বাড়ি থেকে বের হলেই ওই স্থানে হাজির হয়ে উত্ত্যক্তসহ নানা প্রকার অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করতেন সুজন।

ভুক্তভোগী নারী বলেন, ‘দফায় দফায় কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন সুজন। তাতে সায় না দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৩০ জুন সকালে কাজির শিমলা বাজারে আমাকে ও আমার বোনের পথরোধ করে বাজার থেকে জোড়পূর্বক ডেকে নিয়ে যায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স সুজন এন্টারপ্রাইজে। সেখানে নিয়ে নির্জন স্থানে যাওয়ার কুপ্রস্তাব দিলে আমি তাতে রাজি না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তুলে নেওয়ায় চেষ্টা করে।’

ওই নারী আরও বলেন, ‘এক পর্যায়ে প্রকাশ্যে কিলঘুষিসহ শারীরিক নির্যাতন করে এবং আমার শ্লীলতাহানি করে। এ সময় আমার বোন প্রতিবাদ করলে তাকেও মারধর করে। এ ঘটনাটি স্থানীয় আরও কয়েকজন বখাটে যুবক ভিডিও ধারণ করে।’ তিনি নির্যাতনকারীর দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেছেন।

অভিযুক্ত সুজনের ভাই বলেন, ‘আমার ভাই তাকে পিটিয়েছে সত্য, কিন্তু দুজনেই ভালো না। তাদের বিচার হওয়া দরকার।‘

এ বিষয়ে ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মাইন উদ্দিন জানান, ওই প্রবাসী নারীর দায়ের করা অভিযোগটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এমন আরো সংবাদ

Back to top button