‘ফার্স্ট টাইম মেশিন চালাইলাম’, কিশোরের ফেসবুকে গুলির ভিডিও

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের স্টোরিতে রিভলবার দিয়ে গুলি চালানোর একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লার এক কিশোর। সেই ভিডিও’র ক্যাপশনে ওই কিশোর লিখেছেন- ‘ফার্স্ট টাইম মেশিন চালাইলাম’।

ভিডিওটি ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে অত্যাধুনিক রিভলবারে ম্যাগজিন প্রবেশ করে অস্ত্রটি লোড করেন। পরপর দুটি ফাঁকা গুলি ছোড়ে সেই কিশোর। এদিকে সেই ফাঁকা গুলির ভিডিও নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে তুমুল সামালোচনা।

ভিডিওটি আপলোডকারী কিশোরের ফেসবুক আইডি পর্যবেক্ষণে করে দেখা যায়, আইডির নাম ফারহান আহমেদ রাহুল। ঠিকানা দেয়া হয়েছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়।

তার ফেসবুক আইডির বায়োতে দেখা যায়, তিনি ফতুল্লা পাইলট স্কুলের সাবেক ছাত্র ও বর্তমানে শহরের নারায়ণগঞ্জ কলেজে অধ্যয়নরত। তবে এটি তার প্রকৃত নাম-পরিচয় কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে ফেসবুক প্রোফাইলে তার ছবি থাকলেও স্টোরিতে শেয়ার করা ভিডিওতে শুধুমাত্র গুলি করার দৃশ্যটি দেখা যাচ্ছে। চলমান ভিডিও’র ওপর লেখা ছিল ‘ফার্স্ট টাইম মেশিন চালাইলাম’।

ভিডিওটি আপলোড করা হয়েছে ২২ মার্চ ভোরে ৫টা থেকে ৬ টার মধ্যে। ভিডিও পর্যবেক্ষণ করে বোঝা যায়, যিনি গুলি ছুড়ছিল তার পাশে দাঁড়িয়ে মোবাইলে সেই দৃশ্য ভিডিও করছিলেন অন্য কেউ। তবে কারো মুখচ্ছবি ভিডিও করা হয়নি। কিন্তু ফেসবুক প্রোফাইলের ছবিতে পরিহিত বেগুনি রংয়ের পাঞ্জারির সঙ্গে গুলি করার সময় ব্যবহৃত হাতের বেগুনি রংয়ের পাঞ্জারির হাতার মিল রয়েছে।

এদিকে ভিডিওটি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অভিভাবকমহল বলছে, নারায়গঞ্জে কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়েছে। এ পর্যন্ত কিশোর গ্যাংয়ের হাতে বহু হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটলেও সংশ্লিষ্টরা কিশোর গ্যাং দমনে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি। গুলি করা অস্ত্রটি বৈধ না অবৈধ তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

বিষয়টি স্বীকার করে ফতুল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান সোমবার রাত ১১টায় সময় নিউজকে বলেন, ‘আমরা কিছুক্ষণ আগে কিশোরের ভিডিওটি পেয়েছি। তার আইডি পর্যবেক্ষণ করে তাকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছি। তদন্তের পর বিস্তারিত বলতে পারব।

এর আগে ২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর ফতুল্লার পাগলায় সোহান নামে এক কিশোরের ফাঁকা গুলি করার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছিল। পরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী তাকে গ্রেফতার করে।

Back to top button