দেড় বছর পর বেনাপোল বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি

প্রায় দেড় বছর পর বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে দুই ট্রাকে সাড়ে ৪২ মে. টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার রাত ৮ টায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে পেঁয়াজবাহী ট্রাক দুটি বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করেছে।

উৎপাদন সংকট দেখিয়ে ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করেছিল ভারত সরকার। পেঁয়াজের বাংলাদেশি আমদানিকারক যশোরের দিন ইসলাম ট্রেডার্স। কাস্টমস ও বন্দরের আনুষ্ঠানিকতা সম্পূর্ণ করে পণ্য খালাস করাতে আমদানি কারককে সহযোগীতা করেছেন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট সেজুতি এন্টার প্রাইজ।

আমদানিকারক দীন ইসলাম জানান, প্রতি মে. টন পিয়াজের আমদানি মুল্য পড়েছে ১৪০ মার্কিন ডলার। পণ্য খালাস করাতে সরকারকে আমদানি মুল্যের উপর ১০ শতাংশ শুল্ককর পরিশোধ করতে হচ্ছে।

বেনাপোল আমদানি-রপ্তানি সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক জানান, ভারত সরকার পেঁয়াজ আমদানির অনুমতিতে প্রথম দিকে দেশের অনান্য বন্দর দিয়ে পেঁয়াজবাহী ট্রাক প্রবেশ করলেও এতদিন বেনাপোল বন্দর দিয়ে কোন ট্রাক ঢোকেনি। এতে বাজারে যে পরিমাণে পেঁয়াজের মূল্য কমার কথা ছিল তা কমেনি। বর্তমানে এ পথে পেঁয়াজ আমদানি হওয়ায় আশা করছেন বাজার পূর্বের চেয়ে দর কমবে।

বেনাপোল বন্দরের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার জানান, আমদানিকৃত পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা যাতে দ্রুত খালাস নিতে পারেন তার জন্য সংশিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button