কৃষক আন্দোলন রুখতে দিল্লিতে নজিরবিহীন নিরাপত্তা

ভারতের বিতর্কিত সংশোধিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে পূর্বঘোষণা অনুযায়ী দেশটিজুড়ে জাতীয় ও রাজ্য মহাসড়কে নতুন করে অবরোধে নেমেছেন কৃষকরা। এ আন্দোলন রুখতে শুধুমাত্র দিল্লির উপকণ্ঠেই মোতায়েন করা হয়েছে ৫০ হাজারের বেশি নিরাপত্তা সদস্য।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, আজ শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা থেকে শুরু হওয়া অবরোধ বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলবে। এ অবরোধের আওতামুক্ত থাকছে অ্যাম্বুলেন্স ও স্কুলবাসের মতো জরুরি ও প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলো।

অবরোধ কর্মসূচিকে ঘিরে যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে জন্য দিল্লির উপকণ্ঠে ৫০ হাজারের বেশি নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করেছে ভারতীয় প্রশাসন। সেই সঙ্গে অনেক জলকামান আনা হয়েছে। এ অবস্থায় আন্দোলনরত কৃষক ও নিরাপত্তা সদস্যদের মাঝে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে দিল্লিতে ১২টি মেট্রো স্টেশনে জরুরি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশের প্রায় ৫০ হাজার কর্মীর পাশাপাশি থাকছে আধাসামরিক বাহিনীও।

গাড়ির চাকা চলবে না-এমন কর্মসূচিতে শান্তিপূর্ণ করাই আন্দোলনকারীদের লক্ষ্য, জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সংযুক্ত কিষান মোর্চা। উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং রাজধানী দিল্লি ও তার সংলগ্ন এলাকাগুলোতে নতুন কর্মসূচির বাইরে থাকবে জানিয়েছে তারা। যদিও দিল্লিমুখী যেসব রাস্তায় মাস দুয়েক ধরে অবরোধ চলছে, সেগুলি ছাড়া বাকি রাস্তা খোলা থাকবে।

কী কারণে দিল্লির রাস্তা অবরোধ করা হচ্ছে না, তা জানিয়েছেন ভারতীয় কিসান ইউনিয়নের সভাপতি রাকেশ টিকায়েত। তিনি বলেন, ‘দিল্লিতে আন্দোলনের জায়গায় ইতিমধ্যেই অবরোধ রয়েছে। ফলে সেখানে নতুন করে এই কর্মসূচি পালন করার প্রয়োজন নেই। পাশাপাশি আলোচনার জন্য যে কোনো সময় দিল্লি থেকে ডাক আসতে পারে। তাই রাজধানীর রাস্তা খোলা রাখা হবে।’

তবে কৃষকদের নতুন করে এই কর্মসূচিতে ষড়যন্ত্রের আভাস পাচ্ছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। কৃষক আন্দোলনের নেতাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করছে তারা।

 

এমন আরো সংবাদ

Back to top button